1. mohammadrakib230@gmail.com : dailymohanogor :
কাটাখালী এলাকায় গাছের গোড়া টাইলস দিয়ে বাঁধাই করাই প্রশংসায় ভাসছেন মেয়র আব্বাস - দৈনিক মহানগর 24.কম

কাটাখালী এলাকায় গাছের গোড়া টাইলস দিয়ে বাঁধাই করাই প্রশংসায় ভাসছেন মেয়র আব্বাস

  • আপডেটের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৫ জুলাই, ২০২১
  • ২৪ দেখুন

স্টাফ রিপোর্টারঃরাজশাহী জেলার কাটাখালী পৌরসভার নগরপাড়াতে যখন হাজার হাজার বিভিন্ন শ্রেণীর পেশাজীবি মানুষ পদ্মা নদীর মনোরম পরিবেশের একটু আনন্দ উপভোগ করতে বট গাছের ছায়ায় বাসতো।

এসময় বসার কোন জায়গা পাওয়া যায় না। আগন্ত জনগন পদ্মার পানির আনন্দ উপভোগ করে হাত পা ধুয়ে একটু বিশ্রামের জন্য যায়গা খুজতো। তখন আর বসার ঠাই পাওয়া যেতো না।

এতে ছোট বড় বৃদ্ধ সকলকেই একই কষ্ট করতে হতো একটু বিশ্রামের জন্য বা একটু বসার জন্য।

ক্লান্তি লগ্নে সকলের মনটা বেজার করে চলে যেত এবার মোঃ আব্বাস আলী পূনরায় কাটাখালী পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হওয়ায় নগরপাড়ার সেই বট বৃক্ষের বিশাল আকৃতির দানবীয় গাছটির চারিদিকে। টাইলস দিয়ে বাঁধাই করে দেওয়ায় অন্তত পক্ষে শত শত মানুষ আরাম আয়েষের সাথে বিশ্রাম নিতে পারবে।

আর এই বাধায় কাজে সার্বিক সহযোগিতা করেছেন অত্র ৬ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র মোঃ আবু সাদত নান্নু।

নান্নু ভাই নগরপাড়ারই ছেলে এখানেই তার বাস। পিতা ছিলেন রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের একজন কর্মকর্তা। আদব আখলাক আর গুরু ভক্তি কোনটিই নান্নুর কমতি নেই। ইতি পূর্বেও নান্নু কাটাখালী পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলেন। এবারেও ৬ ওয়ার্ড থেকে অনেকেই ভোট করেছে। কিন্তু কেউ তার ধারের কাছে কেউ যেতেই পারেনি। অনেকেই নির্বাচন করেছিলেন সকলেই ঝড়ে পড়েছেন।

প্রতিদিন সকালে নগরপাড়া বটতলায় পদ্মা নদীর মাছের হাট বসে। বাহারি মাছ কিনতে রাজশাহীর আনাচে কানাচে থেকে শুরু করে রাজশাহী শহরের মানুষও আসে এখানে মাছ কিনতে।

এখান থেকে দুই তিনজন বড় বড় মাছ ব্যবসায়ী কাটুনে করে, মাছ বরফ দিয়ে ছোট ছোট ট্রাক যোগে প্রতিদিন ঢাকায় আড়তে মাছ বিক্রি করতে নিয়ে যান।

স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ী আবু হানিফ বলেন, বট গাছের গোড়া বাঁধায়ের মনোরম পরিবেশ চোখে দেখে তার চোখে
অশ্র চলে আসে। তিনি বলেন আজ থেকে দুইদিন আগেও যেখানে মাটিতে বসার যায়গা ছিলো না। সেখানে আজ নান্নুর সহযোগিতায় মেয়র মহোদয় বৃহৎ আয়তনের এই গাছের চারিদিকে টাইস দিয়ে বাঁধাই করে দিয়েছেন। সেই সাথে লাইটিং এর ব্যবস্থাও করেছেন। যাহা দেখতে চমৎকার লাগছে।

বটগাছটির গোড়া টাইলস দিয়ে বাঁধায় উদ্বোধন করেন কাটাখালী পৌরসভার মেয়র জনাব, মোঃ আব্বাস আলী। মেয়র আব্বাস আলী কাটাখালী বাজারের একজন বাসিন্দা এবং রুচি সম্মত ছেলে।

মেয়র সাহেব নিজে যেমন ফিট ফাট থাকেন তেমনি তার পৌরসভাকেও চাক চিককো করে রাখেন। আগামি প্রজন্মে এমন উদার মনের মানুষ কাটাখালী তো দুরের কথা সমগ্র রাজশাহীতে মিলানোও অসম্ভব। তাদের অবর্তমানে কাটাখালী পৌরসভা ডাসবিনে পরিনত ছিলো।

ক্রইম নিউজ২৪ ডট নেট পোর্টালের সহ-সম্পাদক কাজী এনায়েত উল্লাহ বলেন, আমি প্রায় পদ্মানদীর মাছ কিনতে নগরপাড়া বটতলায় আসি। এখানে প্রতিদিন সকালে হাজার হাজার নারী পুরুষের সমগম হয়।

কিন্তু দূখ:বিষয় ছিল। এখানে একটু বসার কোন যায়গা ছিল না। কাউন্সিলর নান্নুর সহযোগিতায় কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আজ যে মহান কাজটি করেছেন। এটি সৎকায়ে জারিয়া হিসেবে থাকবে। এর জন্য তারা সারা জীবন নেক কামাবে।

আমরা দোয়া করি তারা যেন করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের তীব্রতা থেকে আল্লাহ তায়ালা তাদেরকে রক্ষা করুন।

মানুষের মাঝে ভুল বুঝাবুঝি থাকতে পারে, যারা মাপ করে দেন তারাই মহান। যারা একে অপর কে বুকে জড়িয়ে কাজ করেন তারাই মহান।

অনুসন্ধানে আরো পাওয়া গেছে করোনা মাহামারির কারণে বিদ্যমান লকডাউনের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত দরিদ্র, অসহায় ও দিনমজুর কর্মহীনদের পাশে দাঁড়িয়েছে ‘নেহার বানু কল্যাণ ট্রাস্ট’ গত শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাসটাকাদীঘি স্কুল মাঠে এই কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে স্থানীয় ১ হাজার দরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়।

কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীর মায়ের উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এই কল্যাণ ট্রাস্ট সম্পূর্ণ নিজেদের অর্থায়ণে ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। পর্যায়ক্রমে কাটাখালীর আরও দরিদ্রদের এই ত্রাণ বিতরণ কর্মসূচির আওতায় আনা হবে।

কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীর সভাপতিত্বে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পবা-মোহনপুর আসনের সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন। প্রধান অতিথি “নেহার বানু কল্যাণ ট্রাস্টের” প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, করোনা মহামারীর কারণে সবার জীবনের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হচ্ছে। এমন অবস্থায় স্বাস্থ্যবিধি পালনের বিকল্প নাই। নিজের পাশাপাশি সমাজের সকলের স্বার্থে জারি করা রাষ্ট্রের নির্দেশনা পালন করতে হবে।

কাটাখালী পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী তার সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে বলেন, আমরা কেউ মাস্ক ছাড়া চলবোনা না। একই সাথে সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করবো। কাটাখালী পৌরসভার পক্ষ থেকে সবাইকে মাস্ক সম্পূর্ণ বিনামূল্যে বিতরণ করা হবে। রাষ্ট্রীয় নির্দেশনা পালনের ফলে আমরা কাটাখালী পৌরসভা এলাকায় এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। এটা পৌরবাসীর সহযোগিতা ও দায়িত্ব পালনের মানসিকতার কারণে সম্ভব হয়েছে। আগামীতেও আমরা সবাই এভাবেই থাকবো ইনসা আল্লাহ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর
© Copyright 2019 All rights reserved dailymohanogor24
Customized BY NewsTheme